পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান


জেলাঃ ঢাকা

মুদ্রা জাদুঘর
ঢাকা >>  মতিঝিল (থানা)

রাজধানী ঢাকার মতিঝিলে বাংলাদেশ ব্যাংকে কার্যালয়ে ২০০৯ সালে এই জাদুঘরটির যাত্রা শুরু। তবে এটি স্থানান্তর হওয়ার কথা মিরপুর বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমীতে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

পাইকপাড়া সরকারী স্টাফ কোয়ার্টার জামে মসজিদ
ঢাকা >>  মিরপুর (থানা)

এটি একটি আধুনিক দৃষ্টিনন্দন স্থাপনা। রাজধানী ঢাকার মিরপুর-১ এর আনসার ক্যাম্প এলাকায় (পাইকপাড়ায়) এই জামে মসজিদটি দেখতে পাবেন। প্রায় ৬২ শতাংশ ভূমির উপর এই মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদটিতে একসাথে ৫,৫০০ জন মুসল্লি নামাজ পড়তে পারবেন। নারীদের জন্য রয়েছে পৃথক নামাজের ব্যবস্থা। মসজিদটি এক গম্বুজ বিশিষ্ট। এবং প্রায় ১৩০ ফুট উঁচু দুটি দৃষ্টিনন্দন মিনার দেখতে পাবেন। ধর্মীয় এই ইমারতটি ৪ তলা বিশিষ্ট। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

টাকার জাদুঘর
ঢাকা >>  মিরপুর (থানা)

রাজধানী ঢাকার মিরপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ ব্যাংক ট্রেনিং একাডেমীতে এই জাদুঘরটির অবস্থান। বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের টাকা-পয়সা এই জাদুঘরটিতে সংরক্ষিত আছে। প্রাচীনকাল থেকে শুরু করে পাল বংশ, সেন বংশ, সুলতানি ও মোঘল আমলের মুদ্রাসহ বিভিন্ন ধরনের মুদ্রা এখানে দেখতে পাবেন। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

রায়ের বাজার বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ
ঢাকা >>  মিরপুর (থানা)

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীরা এদেশের বহু বুদ্ধিজীবী হত্যা করে এখানে ফেলে রেখেছিল। নিহিত বুদ্ধিজীবীদের স্মরণে এখানে নির্মিত হয়েছে একটি সুন্দর স্মৃতিসৌধ। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

অজানা সমাধি সৌধ
ঢাকা >>  মোহাম্মদপুর (থানা)

ঢাকার মোহাম্মদপুরের সাতগম্বুজ মসজিদের নিকট উত্তর-পূর্ব দিকে এই সমাধি সৌধটি রয়েছে। সমাধি সৌধটি কার তা জানা না যাওয়ায় এটি অজানা সমাধি সৌধ নামেই পরিচিত। সৌধ ইমারতটি বর্গাকারে নির্মিত। এটি খ্রিষ্টীয় সতের শতকে মোঘল শাসনামলে নির্মিত বলে অনুমান করা হয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

দরা বেগমের মসজিদ / সমাধি
ঢাকা >>  মোহাম্মদপুর (থানা)

মোহাম্মদপুর কলোনির নিকট লালমাটিয়া মহিলা কলেজের নিকট এই ইমারতটি রয়েছে। ইমারতটির নির্মাণ কৌশলের কারনে অনেক ইতিহাসবিদ এটিকে মাজার বলে অভিহিত করেছেন। বর্তমানে এটি মসজিদ হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ইমারতটি একটি এক গম্বুজ বিশিষ্ট বর্গাকারে নির্মিত ইমারত, যার প্রতি দিকের দৈর্ঘ্য প্রায় ২৮ ফুট। বর্গাকার কক্ষের দক্ষিণে রয়েছে একটি বারান্দা। পশ্চিম দেয়ালে আছে ১ টি মিহরাব। একটি উঁচু ভিত্তি বেদীর উপর নির্মিত এই ঐতিহাসিক ইমারতটি সপ্তদশ শতকে নির্মিত বলে অনুমান করা হয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

সাত গম্বুজ মসজিদ
ঢাকা >>  মোহাম্মদপুর (থানা)

রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুর থানার জাফরাবাদে এই সাত গম্বুজ মসজিদটি অবস্থিত। মূল ইমারতটি ৩ গম্বুজ বিশিষ্ট। এর ব্যতিক্রম বৈশিষ্ট্যের মধ্যে মসজিদের ৪ কোনে ৪ টি বুরুজের পরিবর্তে ৪টি কামরা রয়েছে। কামরাগুলোর উপর ৪ টি গম্বুজ নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদের মূল ছাদের উপর ৩ টি ও এর ৪ কোনের উপর ৪ টি গম্বুজ থাকায় এটিকে সাত গম্বুজ মসজিদ বলা হয়। প্রবেশের জন্য মসজিদের পূর্ব দেয়ালে ৩ টি এবং উত্তর-দক্ষিণ দেয়ালে ১ টি করে প্রবেশ পথ রয়েছে। পশ্চিম দেয়ালে ৩ টি মিহরাব আছে। মসজিদটির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হলো, এর উত্তর, দক্ষিন ও পশ্চিম দিকে মসজিদের বাহির দিয়ে সরু বারান্দা রয়েছে। শায়েস্তা খা এর আমলে ১৬৮০ খ্রিষ্টাব্দে এটি নির্মিত বলে অনুমান করা হয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

পুলিশ লাইন জাদুঘর
ঢাকা >>  মোহাম্মদপুর (থানা)

ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ লাইনস টেলিকম ভবনে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে এই পুলিশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর। ২০১৩ সালের ২৪ মার্চ উদ্ভোধন করা হয় জাদুঘরটির। ১৯৭১ সালের বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে পুলিশ বাহিনীর গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাসের সাক্ষ্য দেয় এই জাদুঘরটি। মুক্তিযুদ্ধের সময় পুলিশের ব্যবহৃত রাইফেল, পতাকাসহ আরও অনেক নিদর্শন এখানে স্থান পেয়েছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ
ঢাকা >>  মোহাম্মদপুর (থানা)

ঢাকার রায়ের বাজারের ইটাখোলায় রয়েছে এই স্মৃতিসৌধটি। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধচলাকালীন সময়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা মিলে যুদ্ধের শেষ সময়ের দিকে এদেশের হাজারও বুদ্ধিজীবীদের ধরে হত্যা করে। তাদের স্মরণে এই স্মৃতিসৌধটি নির্মিত হয়েছে। প্রায় সাড়ে ৩ একর এলাকা জুড়ে এই স্মৃতিসৌধটির অবস্থান। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

রাজধানী ঢাকার কেন্দ্রস্থলে অবস্থিত একটি সুবিশাল উদ্যান এই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান। ইতিহাস আর ঐতিহ্যের দিক থেকে এর গুরুত্ব অপরিসীম। উদ্যানটির পূর্ব নাম ছিল রমনা রেসকোর্স ময়দান। স্বাধীনতা পূর্বে এখানে ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা হতো। উদ্যানটির একপাশে রমনা উদ্যান এবং অপর পাশে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। বাংলা ভাষাকে রাষ্ট্রভাষা মর্যাদা দেয়ার লড়াই শুরু মূলত এই উদ্যান থেকেই। ১৯৪৮ সালের ২১ মার্চ পাকিস্তানের প্রথম গভর্নর জেনারেল মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ এই মাঠেই ঘোষণা করেছিলেন ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

মুসা খাঁর মসজিদ
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রাবাস শহিদুল্লাহ হলের নিকট সদর রাস্তার পাশে এবং ঢাকা গেইটের দক্ষিণে, কার্জন হলের সন্নিকটে মোঘল আমলে নির্মিত এই মসজিদটির অবস্থান। একটি উঁচু প্লাটফর্মের উপর মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদের নীচ তলায় রয়েছে ছোট ছোট কামরা। প্লাটফর্মের উপর নির্মিত এই মসজিদটির পূর্ব দেয়ালে রয়েছে ৩ টি প্রবেশ পথ। উত্তর ও দক্ষিণ দেয়ালে প্রবেশের জন্য ১টি করে প্রবেশপথ আছে। মসজিদটির অভ্যন্তরের পশ্চিম দেয়ালে ৩টি মিহরাব আছে। মসজিদ ভবনটির ৪ কোনে ৪টি মিনার রয়েছে। এই মিনারগুলোর ২ পাশে ২টি করে সরু মিনার নির্মাণ করা হয়েছে। মসজিদের উত্তর-পূর্ব কোনে আছে মুসা খাঁর একটি সমাধি। বাংলার বারো ভূঁইয়ার শ্রেষ্ঠ ঈসা খাঁ এর পুত্র ছিলেন মুসা খাঁ। মুসা খাঁ মসজিদটি নির্মাণ করেন মুনাওয়ার খান। মুসা খাঁ এর সমাধি প্রাঙ্গণে পরবর্তীতে সমাহির করা হয় ভাষাবিদ ডঃ মোহাম্মদ শহিদুলাহকে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

সুপ্রিম কোর্ট ভবন
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

রাজধানীর রমনা উদ্যানের নিকট এই সুপ্রিম কোর্ট ভবনটি অবস্থিত। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বিচারালয় এ ভবনে অবস্থিত। মোঘল স্থাপত্যরীতি ও ইসলামী স্থাপত্য শিল্পের এক অপূর্ব সমন্বয় ঘটেছে এই ভবনটিতে। ভবনটির নকশা প্রণয়ন করেন পাকিস্তানের বিখ্যাত স্থপতি চিশতি। ষাটের দশকে এই ভবনটি নির্মিত হয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

খাজা শাহবাজ মসজিদ কমপ্লেক্স
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

ঢাকা গেটের কাছে সোহরাওইয়ার্দী উদ্যানের তিন নেতার মাজারের নিকট পূর্বদিকে অবস্থিত রমনা থানার এক দৃষ্টিনন্দন প্রাচীন স্থাপত্যকর্ম। এটি একটি ছোট মসজিদ। মসজিদের নিকট মাজার ও তোরণ নিয়ে এই মসজিদ কমপ্লেক্সটি। মসজিদটি একটি উঁচু ভিত্তিভূমির উপর আয়াতাকারে নির্মিত এবং ৩ গম্বুজ বিশিষ্ট। মসজিদটির পূর্ব দেয়ালে ৩ টি এবং উত্তর ও দক্ষিন দেয়ালে ১ টি করে প্রবেশ পথ আছে। পশ্চিম দেয়ালে রয়েছে ৩টি অলংকৃত মিহরাব। মসজিদ ইমারতটির ৪ কোনে ৪টি আটকোনাকার মিনার রয়েছে। সুবেদার শায়েস্তা খানের আমলে খান শাহবাজ নামের একজন বিত্তবান ব্যক্তি ১৬৭৯ খ্রিষ্টাব্দে মসজিদটি নির্মাণ করেন। মসজিদের প্রায় ৫০ ফুট পূর্ব দিকে রয়েছে একটি এক গম্বুজ বিশিষ্ট বর্গাকারে নির্মিত সমাধি সৌধ। এটি হাজী খাজা শাহবাজের সমাধি। সমাধির দক্ষিনে একটি দোচালা বারান্দা আছে, এ ধরনের বারান্দা বাংলায় সাধারণত দেখা যায় না। মূল সমাধি কক্ষটির পরিমাপ প্রায় ২৬ বর্গফুট। সমাধি সৌধটির ৪ কোনে ৪টি বুরুজ রয়েছে। সৌধে প্রবেশের জন্য দক্ষিনে ৩ টি প্রবেশ পথ রয়েছে। উত্তর দেয়ালে একটি মিহরাব দেখা যায়। এই মসজিদ ও মাজার সংলগ্ন পূর্ব দিকে একটি ধ্বংসপ্রাপ্ত দেয়াল ও তোরণ দেখতে পাওয়া যাবে, এটি ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

চামেলী হাউস
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

ঢাকার হাইকোর্ট ভবনের উল্টোদিকে শতবর্ষী এই স্থাপনাটি রয়েছে। ১৯২০ খ্রিষ্টাব্দে ইংরেজদের কুটিরের আদলে এই ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছিল। অদ্যবদি এটি পূর্বের ন্যায়ই রয়েছে। নির্মাণকালীন সময় থেকে এর কোন পরিবর্তন ঘটে নি। বর্তমানে এটি সিরডাপের কার্যালয় হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

নিমতলী প্রাসাদ ও তোরণ / দেউরী
ঢাকা >>  রমনা (থানা)

এশিয়াটিক সোসাইটির নিকট তিনতলা বিশিষ্ট একটি পুরাতন ইমারতের পূর্ব দিকে নিমতলী প্রাসাদের তোরণটি রয়েছে। প্রাসাদটি বর্তমানে ধ্বংসপ্রাপ্ত। তবে, এখনও এর কিছু অংশ প্রাসাদটির অস্তিত্ব জানান দেয়। প্রাসাদ ও তোরণটি ১৭৬৫ খ্রিষ্টাব্দে কিংবা এর কাছাকাছি কোন এক সময়ে নির্মিত বলে অনুমান করা হয়। ব্রিটিশ আমলে নায়েব নাজিরদের থাকার জন্য এটি নির্মাণ করা হয় বলে ধারনা করা হয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

First  Previous  1  2  3  4  5  6  Next  Last  



পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান