পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান


শুভ্রনীল
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

বান্দরবন জেলার সদর উপজেলার কাছেই সবচেয়ে উঁচু পাহাড় নিলাচলের পাশেই রয়েছে এই স্পটটি। শহরের টাইগার পাড়ায় এই স্পটটি দেখতে পাবেন। এখানে একটি ঝর্ণা রয়েছে। যা আপনাকে মুগ্ধ করবে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

পিক ৬৯
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

চিম্বুক থেকে নীলগিরি যাওয়ার পথে পড়বে পিক ৬৯ নামের একটি স্পট। এটি একটি রাস্তার নাম। বাংলাদেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রাস্তা এটি। রাস্তার পাশে একটি সুদৃশ্য সাইনবোর্ডে এই রাস্তাটিকে পিক ৬৯ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

মিরিঞ্জা
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

পাহাড় আর সবুজের এক অপূর্ব মনঃমুগ্ধকর প্রাকৃতিক পরিবেশ এই মিরিঞ্জা। বান্দরবন জেলার লামা উপজেলার একটি স্থানে নাম মিরিঞ্জা। ফাঁসিয়াখালী-লামা-আলীকদম সড়কে রয়েছে এই স্পটটি। এখানে টাইটানিক নামের একটি উঁচু পাহাড় রয়েছে। আরও আছে একটি ঝর্ণা। মিরিঞ্জা পর্যটন স্পটের প্রায় ১০০০ ফুট নিচে দেখতে পাবেন এই ঝর্ণা ধারাটি। মিরিঞ্জা পর্যটন স্পটটিতে যেতে হলে আপনাকে চকরিয়া হয়ে যেতে হবে।সমুদ্রপৃষ্ঠ হতে প্রায় ১৫০০ ফুট উপরে এই স্পটটি পিকনিক স্পট হিসেবেও বেশ জনপ্রিয়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

মিলনছড়ি
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

বান্দরবন শহর থেকে প্রায় ৫ কিলোমিটার দূরে ব্যক্তি মালিকানায় গড়ে তোলা হয়েছে এই পর্যটন স্পটটি। বান্দরবন থেকে রুমা যাওয়ার পথে পড়বে এই স্পটটি। এখানে রাত্রি যাপনের ব্যবস্থাও আছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

শৈলপ্রপাত
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

এটি একটি পাহাড়ি ঝর্ণাধারা। বান্দরবন থেকে রুমা যাওয়ার পথেই দেখতে পাবেন এই ঝর্ণাধারাটি। এটি একটি শীতল পানির ঝর্ণাধারা। বান্দরবন শহর থেকে মাত্র ৮ কিলোমিটার দূরে রয়েছে এই প্রাপাতটি। শীত-গ্রীষ্ম সকল ঋতুতেই বহমান থাকে এই প্রপাতটি। তবে শীত মৌসুমে এর জলধারা অনেক কমে যায়। এখানে রয়েছে ওয়াচ টাওয়ার। জলপ্রপাত সংলগ্ন রাস্তায় আদিবাসীদের কয়েকটি দোকান রয়েছে। এগুলিতে আদিবাসীদের হাতের তৈরি পোশাক পাওয়া যাবে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

চিম্বুক পাহাড়
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

বাংলার দার্জিলিং খ্যাত চিম্বুক পাহাড়টি বান্দরবন জেলায় বান্দরবন থেকে মেঘের রাজ্য নীলগিরি যাওয়ার পথে পড়বে। অনেকেই আবার এই স্পটটিকে পাহাড়ের রানীও বলে থাকেন। কারও কারও কাছে কালো পাহাড় হিসেবেও পরিচিত। সারা বছরই পর্যটকরা এখানে ঘুরতে আসেন। সারা বছরই এই স্থানটিতে শীতল ভাবটি থেকে যায়। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ২ হাজার ফুটের বেশি উঁচুতে এই স্থানটি। এখানে থাকতে চাইলে তার ব্যবস্থাও রয়েছে। এখানে ঘুরতে আসলে হঠাৎ করেই মেঘের দল এসে আপনাকে ভিজিয়ে চলে যাবে। তবে, এখানে এসে যদি মেঘ ছুয়ে দেখতে চান, বৃষ্টির মৌসুমে আসলেই ভাল। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

কানাপাড়া পাহাড়
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

বান্দরবন সদরে এই পাহাড়টি রয়েছে। বম সম্প্রদায়ের বসবাস এই পাহাড়টিতে। বম সম্প্রদায়ের জীবন বৈচিত্র, সরলতা আপনাকে মুগ্ধ করবে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

ক্যামলং জলাশয়
বান্দরবান >>  বান্দরবান সদর

বান্দরবন জেলার সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের ভাঙ্গামুড়া পাহাড়ের কাছে এই ক্যামলং জলাশয়টি দেখতে পাবেন। এটি একটি লেক। শহর থেকে প্রায় ৮ কিলোমিটার দূরে যেতে হবে আপনাকে, যদি পাহাড়ি প্রাকৃতিক পরিবেশে বিশালাকৃতির এই জলাশয়ে ঘুরে আসতে চান। শীতে এই স্পটটিতে বহু দূর-দূরান্ত থেকে পিকনিক করতে আসেন অনেকেই। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

বগা লেক
বান্দরবান >>  রুমা

বান্দরবনের রুমা উপজেলায় এই লেকটি রয়েছে। দেশের সর্বোচ্চ উচ্চতায় অবস্থিত মিঠা পানির হ্রদ এই বগা লেক। রুমা বাজার থেকে প্রায় ১৭ কিলোমিটার দূরে রয়েছে এই লেকটি। প্রায় ১৫ একর জায়গা জুড়ে বিস্তৃত এই লেকটি । লেকের পানি খুবই স্বচ্ছ। চাঁদনী রাতে তাই এক অপরূপ প্রাকৃতিক পরিবেশের সৃষ্টি হয় এখানে। অনেকের কাছে এই লেকটি ড্রাগন লেক নামেও পরিচিত। বাংলাদেশের অন্যান্য লেকগুলির মধ্যে বগা লেক সবচেয়ে আকর্ষণীয় একটি লেক। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৩,৫০০ ফুট উপরে এই লেকটি রয়েছে। লেকটি কৃত্রিমভাবে সৃষ্ট নয়, প্রকৃতির এক অপরূপ সৃষ্টি এই বগা লেকটি। লেকের স্বচ্ছ পানির কারনে এর গভীরতা সহজেই অনুমান করা যায় না। এ কারনে সাঁতার না জানলে এই লেকে না নামাই ভাল। শীত মৌসুমে এখানে যাওয়ার রাস্তা ভাল থাকে বিধায় শীতেই এখানে ভ্রমন করাই ভাল। বর্ষার সময় পায়ে হেঁটে যেতে হবে অনেকটা কাঁদা মাটির পথ। ইচ্ছা করলে এখানে রাত্রি যাপন করতে পারবেন। রয়েছে ছোট ছোট কটেজ। লেকের চারদিকের প্রাকৃতিক প্ররিবেশ - পাহাড়, অরন্য পর্যটকদের নিয়ে যাবে এক অন্য ভুবনে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

বিজয় তাজিংডং
বান্দরবান >>  রুমা

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ এই বিজয় বা তাজিংডং। স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে এই পর্বতশৃঙ্গটি তজিংডং নামেই বেশি পরিচিত। এর উচ্চতা প্রায় ৪ হাজার ৫শ ফুট। রুমা থেকে এই তজিংডং এর দূরত্ব প্রায় ২৭ কিলোমিটার। যারা বগা লেকে বেড়াতে আসেন তারা বগা লেক থেকে মাত্র ৭ থেকে ৮ কিলোমিটার দূরের এই পর্বতশৃঙ্গটি ঘুরে দেখে আসতে পারেন। যেখান থেকেই এই পর্বতশৃঙ্গে যান না কেন, স্থানীয় একজন গাইড সঙ্গে নিয়ে যাওয়াটাই ভাল। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

First  Previous  1  2  3  4  5  6  Next  Last  



পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান