পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান


পরীর দালান/হেমনগর জমিদার বাড়ি
টাঙ্গাইল >>  গোপালপুর

গোপালপুর উপজেলার হেমনগর ইউনিয়নের শিমলাপাড়া গ্রামে এই পরীর দালানটি অবস্থিত। এই ইমারতটির চূড়ায় ২টি রাজসিক পরীর অলঙ্করণ রয়েছে বলে স্থানীয় বাসিন্দারা এটিকে পরীর দালান বলে অভিহিত করে। ১৮৯০ খ্রিষ্টাব্দে জমিদার হেমচন্দ্র চৌধুরী এই ভবনটি নির্মাণ করেন। হেমচন্দ্রের এই দালানটির আশেপাশের এলাকা জুড়ে বেশ কয়েকটি ভবন রয়েছে, যেগুলো জমিদারের আত্মীয়-স্বজনদের ছিল। দ্বিতল বিশিষ্ট এই জমিদারবাড়িতে একশটি কক্ষ রয়েছে। জমিদার বাড়িটির চারপাশে দেয়াল দিয়ে ঘেরা। জমিদারবাড়িটি একসময় বেশ জাঁকজমক এবং কারুকার্যমণ্ডিত ছিল। সময়ের বিবর্তনে আজ জমিদার বাড়িটির অনেক ঐতিহ্যই হারাতে বসেছে। ১৯৪৬ সালে জমিদার হেমচন্দ্র চৌধুরী এই জমিদারি ফেলে কলকাতায় চলে যান। পরবর্তীতে ১৯৭৯ সালে এই জমিদারবাড়িটি হেমনগর খন্দকার আসাদুজ্জামান ডিগ্রী কলেজ হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বর্তমানে এই জমিদারবাড়ীর কয়েকটি কক্ষ ভংগদশায় রয়েছে। গোপালপুর উপজেলা হতে প্রায় ১১-১২ কিলোমিটার দূরে হেমনগর ইউনিয়নে এই হেমনগর জমিদার বাড়িটি রয়েছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

মং সার্কেলের রাজবাড়ি
খাগড়াছড়ি >>  মহালছড়ি

খাগড়াছড়ির অন্যতম দর্শনীয় স্থান মানিকছড়ি উপজেলার মং রাজার রাজবাড়ি। মানিকছড়ি উপজেলা মং প্রধানের রাজধানী হিসেবে পরিচিত। রাজবাড়িটি প্রায় ১৫০ বছরের পুরানো। জানা যায়, ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় তৎকালীন রাজা মং প্রুসাই চৌধুরী মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তা করেছিলেন। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

ভাওয়াল রাজবাড়ি
গাজীপুর >>  গাজীপুর সদর

গাজীপুর জেলার জয়দেবপুরে এই ভাওয়াল রাজবাড়িটি পর্যটকদের জন্য খুবই আকর্ষণীয় একটি স্পট। রাজবাড়িটিতে ছোট-বড় মিলিয়ে সর্বমোট ৩৬০টি কক্ষ রয়েছে। রাজবাড়িটি বর্তমানে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। রাজবাড়ির বিভিন্ন অংশ রাজার বিশ্রাম কক্ষ, হাওয়া মহল, রানী মহল হিসেবে ব্যবহৃত হতো। রাজবাড়ির নকশাগুলো এখন আর চোখে না পরলেও বাড়িটি ভাওয়াল রাজাদের আধিপত্য আর ক্ষমতার প্রতীক হয়ে আজও তাদের ঐতিহ্যের সাক্ষ্য বহন করছে। এরপাশেই রয়েছে রাজদিঘি। এই রাজদিঘিটি বিশাল ভূমি জুড়ে রয়েছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

বাটিকামারী জমিদার বাড়ি
গোপালগঞ্জ >>  মুকসুদপুর

গোপালগঞ্জ জেলার মকসুদপুর উপজেলার বাটিকামারী নামক একটি স্থানে অনেক পুরনো একটি জমিদার বাড়ি দেখতে পাবেন। স্থানীয়ভাবে এটি বাটিকামারী জমিদার বাড়ি নামে পরিচিত। এই জমিদার বাড়ির মন্দিরসমূহের কয়েকটি কোনভাবে টিকে রয়েছে। ধারনা করা হয়, মন্দিরগুলো ১৬শ শতকে নির্মিত। বাটিকামারী জমিদার বাড়ির মন্দিরসমূহ শুধুমাত্র গোপালগঞ্জ জেলারই নয় আশেপাশের কয়েকটি জেলার মধ্যে সবচেয়ে পুরনো পুরাকীর্তিগুলোর অন্যতম। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

ছোট বনগ্রাম জমিদারবাড়ি
গোপালগঞ্জ >>  মুকসুদপুর

জমিদারবাড়িটি গোপালগঞ্জ জেলার মকসুদপুর উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়িনের ছোট বনগ্রাম গ্রামে অবস্থিত। বিশালাকৃতির প্রাচীন এই জমিদারবাড়িটি ভূঁইয়া বাড়ী নামেও পরিচিত। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

উলপুর রায় চৌধুরীর জমিদার বাড়ী
গোপালগঞ্জ >>  গোপালগঞ্জ সদর

গোপালগঞ্জের উলপুর গ্রামে বিশাল আয়তনের জায়গাজুড়ে গড়ে তোলা হয়েছিল এই রায় চৌধুরীর জমিদার বাড়িটি। প্রীতীশচন্দ্র রায় চৌধুরী নামক এক রাজকর্মচারীর বাড়ী ছিল এটি। এই জমিদার বাড়িটিতে বাগানবাড়ী, নাটঘর, মেজ ও ছোট বাবু বাড়ী, শ্মশানবাড়ীসহ আরও অনেক স্থাপনা ছিল। প্রায় ২০০ একর জমির উপর গড়ে তোলা হয়েছে এসকল স্থাপনাসমুহ। জমিদার বাড়ির অধিকাংশ নিদর্শন আজ প্রায় ধ্বংসপ্রাপ্ত। তবে একটি ভবন উলপুর পিপি হাইস্কুল হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। রাজবাড়ির স্থাপনাসমুহ ১৯০০ সালের দিকে নির্মিত বলে জানা যায়। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

জমিদার গিরীশ চন্দ্র সেনের বাড়ী
গোপালগঞ্জ >>  কাশিয়ানী

গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানী উপজেলার ভাটিয়াপাড়া নামক একটি স্থানে জমিদার গিরীশ চন্দ্র সেনের বাড়িটি অবস্থিত। জমিদার বাড়ীর মধ্যে মধ্য ভবনটি ছিল দ্বিতল বিশিষ্ট এবং এই দ্বিতল ভবনের দুপাশে রয়েছে এক তল বিশিষ্ট দুটি ভবন। দৃষ্টিনন্দন বিশাল এই জমিদারবাড়িটির পাশেই দেখতে পাবেন একতল বিশিষ্ট একটি সুদৃশ্য মন্দির। বিভিন্ন গাছগাছালিতে ভরা এই জমিদার বাড়িটিতে রয়েছে একটি বিশালাকৃতির পুকুর। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

হরিনাহাটি জমিদারবাড়ি
গোপালগঞ্জ >>  কোটালীপাড়া

গোপালগঞ্জ জেলার কোটালিপাড়া উপজেলায় রয়েছে এই উপজেলার অন্যতম ঐতিহাসিক নিদর্শন হরিনাহাটি জমিদারবাড়িটি। বিশাল এলাকা জুড়ে রয়েছে এই জমিদারি স্টেটটি। জমিদার স্টেটটিতে রয়েছে সান বাঁধানো বিশালাকার ৫টি দিঘি। এছাড়াও ঘোড়াশালা, মন্দির, বাসভবনগুলো অযত্নে পড়ে থাকলেও এখনও যেন জমিদারের জৌলুসের কথাই জানান দেয়। মূল জমিদার বাড়িটি প্রায় ১১ একর ভূমি জুড়ে বিস্তৃত। আঠার শতকের মাঝামাঝি সময়ে এগুলো নির্মিত বলে অনুমান করা হয়। এই জমিদারবাড়িটির প্রতিষ্ঠাতার সাথে ভট্টাচার্য্য নামের এক জমিদার এবং মধুর নাথ রায়ের নাম জড়িত। বর্তমানে এই জমিদার বাড়িটির একটি ভবন জমিদারদের নির্মিত একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

এগারসিন্দুর দুর্গ
কিশোরগঞ্জ >>  পাকুন্দিয়া

কিশোরগঞ্জ জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলায় অবস্থিত এগারসিন্দুর দুর্গ একটি ঐতিহাসিক স্থান। দুর্গটি এখানে বসবাসরত কয়েকটি শক্তিশালী সাম্রাজ্যের দুর্গ হিসেবে ব্যবহৃত হয়েছিল। একসময় বেবুদ্ধা নামক এক কোচ রাজা এখানে এই দুর্গটি নির্মাণ করেছিলেন। রাজা বেবুদ্ধার রাজধানী ছিল এটি। এখানে বেবুদ্ধা একটি দিঘি খনন করেছিলেন, যেটি ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

দিল্লীর আখড়া
কিশোরগঞ্জ >>  মিঠামইন

সম্রাট জাহাঙ্গীর এর আমলে এই আখড়াটি নির্মিত। আখড়ার ইমারতটি আজও দৃষ্টিনন্দন। ...... সম্পূর্ণ অংশ পড়ুন

First  Previous  1  2  3  4  5  6  7  8  9  Next  Last  



পর্যটন বাংলাদেশ - বাংলাদেশ ভ্রমণ - বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থান